চকরিয়ায় ১৪৪ ধারা ও পুলিশি বাধা অমান্য করে বাড়ী নির্মাণের অভিযোগ

প্রকাশিত: ১০:১০ পূর্বাহ্ণ, নভেম্বর ১৯, ২০২০

এসএম হান্নান শাহ, চকরিয়া : কক্সবাজারের চকরিয়ার পুর্ববড় ভেওলায় ১৪৪ধারা ও পুলিশি বাধা অমান্য করে কৃষকের পৈত্রিক প্রাপ্ত জমি দখলের অপচেষ্টার অভিযোগ পাওয়াগেছ। অভিযোগসুত্রে জানাগেছে কক্সবাজার চকরিয়া উপজেলার পুর্ববড় ভেওলা ইউনিয়নের ঈদমনি পশ্চিম পুর্বপাড়া ১নং ওয়ার্ড এলাকায় মৃত আবদুর রহমানের পুত্র শামসুল আলম গং ওয়ারেশীসুত্রে পৈত্রিক প্রাপ্ত জমিতে দির্ঘ ৫০ বছর যাবত ভোগ দখলে রয়েছে। এমত অবস্থায় দুর্লোভের বশিবুত হয়ে একই এলাকার প্রতিপক্ষ মৃত আনোয়ার হোছনের পুত্র মোহাং ইলিয়াছ প্রকাশ কালু,মোহাং কাইছার, ও তাদের ভগ্নিপতি আরিফুল ইসলাম গং জোর পুর্বক জমি দখল করে পুকুর খনন করেন, সংবাদ পেয়ে শামসুল আলমের লোকজন বাধা প্রদান করলে একই প্রতিপক্ষ গং গত ১০ জুলাই তাদের কে সশস্ত্র হামলা চালিয়ে ঘটনাস্থল থেকে তাড়িয়েদেন। এসময় শামসুল আলমের পুত্র মোহাং সেলিম সহ ২জন আহত হয়। ক্ষতিগ্রস্থ শামসুল আলম সাংবাদিকদের জানিয়েছেন, তার পিতাও চাচাদের সাড়ে ৩৮ কানি জমির প্রাপ্ত অংশ থেকে তার পিতার অংশগুলি সমানভাগে ভাগ করলে যে জমি প্রাপ্তহন তারা তা বুঝিয়ে পাননি। তার পিতাসহ ৬ জনের দুই দফায় ৫২ কানি জমি ক্রয় করেন, ওই ৫২ কানি জমির তার পিতার অংশে শান্তিপুর্ণ ভাবে তারা ভোগ দখলে রয়েছেন। লোভের বশবর্তি হয়ে সন্ত্রাসী কায়দায় শামসুল আলম গংয়ের প্রাপ্ত অংশ থেকে জবর দখলকরে পুকুর খনন করে একই প্রতিপক্ষ গং। এতে উপায়ন্তর না দেখে শামসুল আলম গং কক্সবাজার অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতে ১৪৪ ধারা চেয়ে একটি আবেদন করেন। আবেদনের প্রেক্ষিতে বিজ্ঞ আদালত বিষয়টি নিস্পক্তি না হওয়া পর্যন্ত জবর দখল না করতে ও শান্তি শৃংখলা বজায় রাখার জন্য আদেশ জারী করেন। শামসুল আলম আরও জানান, ১৪৪ ধারার আদেশ অমান্য করে বাড়ী নির্মাণ কাজ অব্যহত রেখেছেন ১৮ নভেম্বর দুপুর ১২টারদিকে ৯৯৯ নম্বরে ফোন করে অভিযোগ জানালে এতে তাৎক্ষনিক এএস আই মোঃ ফারুক হোসেনের নেতৃত্বে থানা পুলিশের একটি টিম ঘটনাস্থলে গিয়ে বাড়ী নিমার্ণ কাজ বন্ধ করেদেন এবং ফেরাগ সহ নিমার্ণ সামগ্রী জব্দ করেন। এদিকে ঘটনার বিষয় জানতে চাইলে কক্সবাজার চকরিয়া থানার অফিসার ইনচার্জ ওসি শাকের মোহাং জুবায়ের বলেন,তাৎক্ষানিক সংবাদ পেয়ে ঘটনাস্থলে পুলিশ পাটানো হয়েছিল অভিযোগ হাতে পেলে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে বলে জানান।