কোনাবাড়ীতে অবৈধভাবে রাস্তা দখল করে বাণিজ্য।

প্রকাশিত: ৩:৪৪ অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ১০, ২০২১

নাজমুল হোসেন । গাজীপুর প্রতিনিধি : গাজীপুর সিটি কর্পোরেশন ওয়ার্ড কাউন্সিলর নাসির উদ্দীন মোল্লার বাড়ি যাওয়ার রাস্তার প্রবেশপথে সরকারি হালটের(রাস্ত) জায়গা দখল করে মার্কেট করার অভিযোগ উঠেছে ইউনিক সিরামিকস্ নামক একটি কারখানার বিরুদ্ধে। ইউনিক সিরামিকস্ কারখানার মালিকের ভাই মোঃ রতন মিয়া ও স্থানীয় মাটির ব্যবসায়ী সিপন মিয়া উক্ত হালট এর জায়গায় স্থাপনা দোকান/ ঘড় নির্মাণ করে ভাড়া দিয়ে লক্ষ লক্ষ টাকা হাতিয়ে নিচ্ছেন বলে জানান স্থানীয় কয়েকজন। জানা যায় গাজীপুর সিটি কর্পোরেশন হওয়ার পরে রাস্তা প্রশস্ত করার লক্ষ্যে সরকারি হালট দখল করে অবৈধ স্থাপনা অপসারণ প্রসঙ্গে নোটিশ করা হয়ে ছিল। সিটি কর্পোরেশন স্মারক নং ৪৩৬ জিসিসি নির্বাহী প্রকৌশলী অঞ্চল ০৭ গাজীপুর। স্বাক্ষরিত নোটিশ প্রাপ্তি হয় গত ২২/০৩/২০২০ ইংতারিখে। এ ব্যপার জানতে চাইলে ৯ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর নাসির উদ্দিন মোল্লা জানান গাজীপুর সিটি কর্পোরেশন ভৌত অবকাঠামো উন্নয়ন (রাস্তা ও ড্রেন) প্রকল্পের অধীনে টেন্ডার আইডি- ২৯৯৮৪২ প্যাকেজ নং জোন -৫ পিডব্লিও-৮ ডি-০৯০৩ ড্রেন ও আরসিসি রাস্তা করা হবে মর্মে নির্বাহী প্রকৌশলী অঞ্চল ৭ সাক্ষরিত নোটিশ প্রদান করা হয়। কিন্তু কর্তৃপক্ষ ও একটি কুচক্রী মহল নোটিশের তোয়াক্কা না করে একঘেয়ামি পন্থা অবলম্বন করে। অত্র সরকারি হালটের স্থাপনা সরিয়ে নেওয়ার লক্ষ্যে উক্ত স্থাপনায় বসবাসরত সকল দোকান ঘড় ভাড়াটিয়ার স্বাক্ষর সম্বলিত কপি ও নোটিশ এর সাথে সংযুক্ত করা হয়। এ ব্যাপারে মার্কেটের দোকানদার মিরাজ ও রাজু জানান আমরা বিগত দিন থেকে এ মার্কেটে লক্ষাধিক টাকা এডভান্স দিয়ে দোকান করতেছি। কিন্তু গত ৩ মাস আগে সিটি কর্পোরেশন থেকে আমাদেরকে মার্কেট ছাড়ার নোটিশ দেওয়া হয়। আমরা মার্কেট কর্তৃপক্ষের কাছে গেলে মার্কেট কর্তৃপক্ষ এ ব্যাপারে তারা কোনো সদুত্তর দেয়নি। আমরা গরীব মানুষ, আমরা চায়ের দোকান করে পরিবার সন্তান নিয়ে ডাল ভাত খেয়ে বাঁচতে চাই। আমাদেরকে এখন এখান থেকে তাড়িয়ে দিলে আমরা কোথায় যাব? আমাদের এডভান্স এর টাকাও দিচ্ছেনা আমরা এর প্রতিকার চাই। স্থানীয় বাসিন্দা তারিফ হাসান, সালমা বেগম,রহিমা বেবি জানান গাজীপুর সিটি কর্পোরেশনের ভিতর কোন ব্রিকফিল্ড (ইটাখোলা) চলার কথা নয়, কোন অদৃশ্য শক্তির কারণে ইউনিক ব্রিকফিল্ড চালাচ্ছে আমরা বোধগম্য নয়। ইটা খলার কয়লা পোড়ানো ধোঁয়ার কারণে কোন গাছেে ফল ধরে না, ধূলো বালি,ময়লার কারনে আমাদের বাচ্চা সন্তানেরা প্রতিনিয়ত অসুস্থ হচ্ছে। এ ব্যাপারে ইউনিক সিরামিকস্ এর ব্যবস্থাপক শফিকুর রহমানের কাছে ফোনে জানতে চাইলে ব্যস্ত আছেন বলে ফোন কেটে দেন। সিটি কর্পোরেশন অভিযানের মাধ্যমে উচ্ছেদ করে। এই উচ্ছেদ অভিযান এর বিপরীতে ইউনিক সিরামিক কর্তৃপক্ষ পাল্টা অভিযোগ দায়ের করে কাউন্সিলর নাসির মোল্লার বিরুদ্ধে। উক্ত এলাকার বাসিন্দাদের বরাত দিয়ে জানা যায় তারা এ ব্যাপারে ইউনিক সিরামিক কর্তৃপক্ষের উপর চরমভাবে বিরক্ত চোর এর উপর সিনা চুরি বলে এই ঘটনাকে আখ্যায়িত করেন তারা।