চকরিয়ায় মাহফিল বন্ধ করে দেয়ায় ক্ষুব্ধ এলাকাবাসী, ক্ষোভ ও উত্তেজনা

প্রকাশিত: ৮:০৫ অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ১৪, ২০২১

এসএম হান্নান শাহ চকরিয়া :: কক্সবাজারের চকরিয়া পৌর এলাকার ৫ নম্বর ওয়ার্ডের খোন্দকার পাড়া এলাকায় বুধবার (১৩ জানুয়ারী) অনুষ্ঠিতব্য সীরাতুন্নবী (স:) মাহফিল প্রশাসনিকভাবে বন্ধের প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন করেছে মাহফিল আয়োজক কমিটি। কক্সবাজার চকরিয়া পৌর এলাকার উত্তর কাহারিয়া ঘোনা ইসলামী সমাজ কল্যাণ পরিষদের নেতৃবৃন্দ গতকাল মঙ্গলবার রাত সাড়ে ৮টায় এ সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করে। সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন সংগঠনের উপদেষ্ঠা ঠিকাদার মিজানুর রহমান। এসময় তিনি বলেন, দীর্ঘ ১১ বছর ধরে কাহারিয়া ঘোনা ইসলামী সমাজ কল্যাণ পরিষদ শান্তিপূর্ণ পরিবেশে এ সীরাতুন্নবী (স:) মাহফিল আয়োজন করে আসছে। বুধবার (১৩ জানুয়ারী) ১২ তম মাহফিল অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা ছিল। সীরাত মাহফিলকে কেন্দ্র করে ইতোমধ্যে অতিথি ও বক্তা দাওয়াত, প্রচার প্রচারণা এবং মাহফিলের প্যান্ডেল নির্মাণসহ সকল আয়োজন সম্পন্ন করে আয়োজক কমিটি। কিন্তু সীরাতুন্নবী (স:) মাহফিলে বক্তা হিসেবে আন্তর্জাতিক খ্যাতি সম্পন্ন মুফাচ্ছিরে কোরআন ও ইসলামী চিন্তাবিদ আল্লামা ড. লুৎফুর রহমান ও মওলানা মুফতি আমির হামজার নাম থাকার অজুহাতে গতকাল মঙ্গলবার বিকালে কক্সবাজার চকরিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সৈয়দ শামসুল তাবরীজ স্বাক্ষরিত এক আদেশের মাধ্যমে মাহফিলটি বন্ধ ঘোষনা করে দেওয়া হয়। উপদেষ্ঠা ঠিকাদার মিজানুর রহমান আরও বলেন, কাহারিয়া ঘোনা ইসলামী সমাজ কল্যাণ পরিষদের ১২তম সীরাতুন্নবী (স:) মাহফিল আয়োজনের লক্ষ্যে গত দুই মাস পূর্বে প্রশাসনিক ভাবে অনুমতি নেওয়া হয়। কিন্তু মাহফিল অনুষ্ঠানের ঠিক আগের দিন হঠাৎ করে প্রশাসনিকভাবে তা বন্ধ ঘোষনা করায় স্থানীয় এলাকাবাসীর মধ্যে ক্ষোভের সৃষ্ঠি হয়েছে। তিনি ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, আল্লামা ড. লুৎফুর রহমান ও মওলানা মুফতি আমির হামজা যদি প্রশাসনিক অনুমতি নিয়ে দেশের প্রত্যন্ত এলাকায় সীরাত মাহফিল করতে পারেন তাহলে চকরিয়ায় তার ব্যতিক্রম কেন ? আমরা প্রশাসনের এ অন্যায় সিদ্ধান্তের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাই। সংবাদ সম্মেলনে উত্তর কাহারিয়া ঘোনা ইসলামী সমাজ কল্যাণ পরিষদের সভাপতি জিয়াউল করিম, সাধারণ সম্পাদক মুফিজুল হকসহ এলাকার শতাধিক লোক উপস্থিত ছিলেন।